ওয়ান এক্স বেট রিভিউ

আপনার মূল্যবান বাজি রাখার জন্য একটি বুকমেকার বাছাই করার আগে এবং জুয়া খেলার কিছু দুর্দান্ত সময় কাটানোর আগে, প্ল্যাটফর্মটি আপনার নির্বাচনের যোগ্য কিনা তা বুঝতে একটি বিশদ তদন্ত করা জরুরী।

বাংলাদেশে চলছে এমন অনেক বুকমেকারদের মধ্যে, কখনও কখনও সত্যিকারভাবে নির্ভরযোগ্য একটি সার্ভিস খুঁজে পাওয়া কঠিন জিনিস হয়ে ওঠে৷ এই ক্লান্তিকর কাজ থেকে আপনার সময় বাঁচাতে আমরা প্রকৃত বাংলাদেশি খেলোয়ারদের ওয়ান এক্স বেট সম্পর্কে রেখে যাওয়া পর্যালোচনাগুলি সংগ্রহ করেছি। খেয়াল করে দেখুন, হতে পারে আপনার প্রতিবেশীর মতবাদও সেখানে আছে?

Find out what other customers think about bookmaker 1xbet who have left reviews

বাস্তব ব্যবহারকারীদের থেকে ওয়ান এক্স বেট রিভিউ

ইতিবাচক

“আমি বাজি এবং জুয়ার দুনিয়ায় মোটামুটি দীর্ঘদিন ছিলাম এবং অনেক বুকমেকার চেষ্টা করেছি। তারপরও ওয়ান এক্স বেট হয়ে উঠেছে আমার প্রিয়। আসলে, এটাই একমাত্র বুকমেকার যেখানে আমি নিয়মিত বাজি রাখি এবং জানি যে এখান থেকে আমি সহজেই আমার বিজয়ের টাকা পাব। আমি এখন পর্যন্ত যতগুলো বেটিং পরিষেবা চেষ্টা করেছি, ওয়ান এক্স বেট তাদের সবগুলোর মধ্যে সবচেয়ে দায়িত্বপূর্ণ। এরা অফার করে খেলাধুলার এক বিশাল সমাহার, বাজি মার্কেট, গুণাগুণ… এগুলি সবই খুব পরিমিত। এছাড়াও, এই ওয়েবসাইটটি সম্পূর্ণরূপে নিরাপদ।”

আশরাফুল হিমেল

“আমার জানা মতে, ওয়ান এক্স বেট হল সবচেয়ে বিশ্বস্ত বুকমেকার। আমি নিশ্চিত যে এখানে বাজি রাখা নিরাপদ কারণ বহু বছর ধরে আমি এটি করছি এবং এখনও পর্যন্ত কোনো সমস্যা হয়নি। আমি বেশ বড় অংকের টাকা ও তুলে নিয়েছি, আবার আমার বড় অংকের ক্ষতিও হয়েছে। আমি মনে করি হার জিত এগুলো সব নির্ভর করে খেলাধুলায়র বিষয়ে আপনার জ্ঞান কতটা গভীর তার উপর। যা হোক, অন্তত এ বিষয়ে আমি খুশি যে আমার সকল বিজয়ের টাকা গুলি আমি উইথ ড্র করার কিছুক্ষণ পরেই আমার ক্রেডিট কার্ডে নিরাপদে চলে আসে।”

রশিদ আনান

“আমি সবসময়ই খেলাধুলার প্রতি একটু অনুরাগী ছিলাম কিন্তু কোয়ারেন্টাইনের সময় বাড়িতে তালাবদ্ধ হবার আগে কখনও বাজি ধরে দেখিনি। ওয়ান এক্স বেট ছিল একমাত্র বুকমেকার যার উপর আমি বিশ্বাস রাখতাম কারণ কর্মক্ষেত্রে আমার সমস্ত সহকর্মী বিরতির সময় ওয়ান এক্স বেট এ তাদের বেট ধরার কথা এবং জয়ের কথা বলেছিল। তাই আমি মনে মনে বললাম “কেন নয়?” এবং ক্রিকেট ম্যাচে আমার প্রথম বাজি রাখার জন্য সংকল্পবদ্ধ হলাম। খেলাটি কীভাবে শেষ হবে এবং কে জিতবে এ ব্যাপারে আমি প্রায় নিশ্চিত ছিলাম কারণ আমি দলগুলি সম্পর্কে এবং খেলার বিভিন্ন সম্ভাবনা সম্পর্কে ভালভাবে জানতাম। কিন্তু আমি আমার প্রথম বিজয়ের আগ পর্যন্ত বেশ নার্ভাস ছিলাম! তারপর থেকে, আমি যে কতবার টাকা উইথ ড্র করেছি, আমি তার গণনা রাখতে পারি না!”

বাঁধন চন্দ্র সরকার

“আমি ওয়ান এক্স বেট এ ২ বছর ধরে খেলছি এবং এখান থেকে টাকা উইথ ড্র করতে কখনো কোন সমস্যা হয়নি। এবং অনেক খেলোয়াড়দের জন্য দ্রুত উইথ ড্র করার ব্যাপার টা অনেক গুরুত্বপূর্ণ হয়ে থাকতে পারে, আমার জন্য বেশি গুরুত্বপূর্ণ খেলাধুলা এবং বাজি মার্কেটের একটি বড় পরিসর। আমি যে ম্যাচ বা গেমটিতে বাজি ধরতে চাই এবং যে ধরনের বাজি ধরতে চাই, ওয়ান এক্স বেট এ তা খুঁজে পেতে আমি কখনই ব্যর্থ হই না।”

ফারহান ফেরদৌস

“আমি তো অবাক হই যে এমন লোক ও রয়েছে যাদের ওয়ান এক্স বেট এর সাথে অমীমাংসিত সমস্যা রয়েছে। আমি ২০১৬ সালে এই বুকমেকার ব্যবহার করা শুরু করেছি এবং যখন প্রথমবারের মত টাকা উইথ ড্র করতে গিয়েছিলাম, শুধুমাত্র তখনই একবার সাপোর্ট টিমের সাথে কথা বার্তা বলতে হয়েছিল। তারা আমার কিছু ডকুমেন্টস চেয়েছিল এবং আমি সেগুলো তাদেরকে দিয়েছিলাম। এবং তার কয়েকদিনের মধ্যেই আমি আমার ক্রেডিট কার্ডে আমার বিজয়ের টাকা পেয়েছি এবং তারপর থেকে অনেক বার তাৎক্ষণিক ও সফলভাবে টাকা উত্তোলন করেছি। আমি এই বুকমেকার কে অনেক পছন্দ করি।”

রিমন আক্তার

“রিভিউ পড়া, আর আগুনে তেল ঢালা একই কথা! ইতিবাচক হোক আর নেতিবাচক, রিভিউ গুলো কে বিশ্বাস করা উচিৎ কি না তা নতুনরা জানে না। এবং প্রথম প্রথম আমিও জানতাম না। তাই আমি ওয়ান এক্স বেট এ যখন আমার প্রথম ডিপোজিট করেছি, আমি অর্ধেক ভয়ে ছিলাম যে আমি আমার বিজয়ের টাকা তুলতে পারব কি না। কিন্তু যখন আমি আমার টাকা উইথ ড্র করতে যাই, ব্যাপার টা এতই নির্বিঘ্ন এবং অবিলম্বে সম্পাদিত হয়েছিল যে, আমি একটু লজ্জিত হয়ে গিয়েছিলাম যে আমি এত দিন এত চিন্তা করেছি! এখন আমি ওয়ান এক্স বেট কে নিঃশর্তভাবে বিশ্বাস করতে পারি কারণ এই বুকমেকার এর সাথে আমার অনেক ব্যক্তিগত ইতিবাচক অভিজ্ঞতা রয়েছে।”

নুসরাত জাহান

“একজন দক্ষ জুয়াড়ি হিসাবে, আমি আপনাকে আশ্বস্ত করতে পারি যে ওয়ান এক্স বেট সম্পূর্ণ বৈধ এবং পছন্দ করার যোগ্য। আমি বাজি ধরতে পছন্দ করি এবং মাঝে মাঝেই ইন্টারনেটে পাওয়া বিভিন্ন বুকমেকারদের সাথে বাজি ধরে পরীক্ষা করি। কিন্তু দিন শেষে, আমি সবসময় ওয়ান এক্স বেট এই ফিরে আসি কারণ এখানে যে গুণাঙ্ক রয়েছে তা সেরা এবং সরাসরি এই ওয়েবসাইটে বিভিন্ন লাইভ ম্যাচের উপর লেনদেন করা যায়। আমাকে একটি ই-ওয়ালেট ব্যবহার করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছিল কারণ বাংলাদেশের বেশিরভাগ ব্যাংক বেটিং এর ওয়েবসাইট থেকে অর্থ হস্তান্তর করার সম্মতি প্রদান করবে না। এখন পর্যন্ত আমি সবকিছু নিয়ে সন্তুষ্ট রয়েছি এবং অবশ্যই এই বুকমেকার ব্যবহারে সবাইকে পরামর্শ দিব।”

সেলিম সরকার

নিরপেক্ষ

“আমি বলব অন্য আরও দশ টার মতোই বেশ ভাল বুকমেকার। আমার কোনো সমস্যা হয়নি কিন্তু উল্লেখযোগ্য কিছু এখনও জিতিনি। আমার মতে তাদের একমাত্র সমস্যা হল তাদের সাপোর্ট টিম টি, যারা খুব একটা সাড়া দেয় না (অনেক অসুবিধা করে বেশ কয়েকবার যোগাযোগ করতে হয়েছিল)। এছাড়া অন্য সব দিক থেকে, আমি এখনও সন্তুষ্ট.”

শামিম ইকবাল

“আমি যত বছর ধরে ওয়ান এক্স বেট এ বাজি ধরেছি, আমি আমার ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে জমা করেছি কিন্তু টাকা তোলার উপায় ছিল শুধুমাত্র বিকাশ এর মাধ্যমে। আমি সম্প্রতি টাকা উইথ ড্র করার ব্যাপারটা নিয়ে কিছু সমস্যার সম্মুখীন হয়েছি যদিও আমি বুঝতে পারছি না এর কারণ কী। আমি এখনও সাপোর্ট টিমের কাছ থেকে জবাবের জন্য অপেক্ষা করছি, (তারা বলেছে যে তারা বিষয়টি নিষ্পত্তি করার সাথে সাথে আমার সাথে যোগাযোগ করবে)।”

মাহমুদুল রিজভি

“আমি খেলাধুলায় বাজি ধরতে পছন্দ করি এবং আমি এই কাজটি বেশ ভালো ভাবে পারি। ওয়ান এক্স বেট এ আমি বেশ কিছু আনন্দময় জয় পেয়েছি কিন্তু সে টাকা গুলো উইথ ড্র করার ব্যাপারে একটু ঝামেলায় পরেছিলাম। প্রথম তিনবার যখন টাকা তুলতে গিয়েছি, আমাকে এমন কিছু কাগজপত্র জমা দিতে হয়েছিল যা আমাকে অ্যাকাউন্টের মালিক হিসাবে প্রমান করতে পারে (সম্ভবত তারা সন্দেহ করেছিল যে একজন ২০ বছর বয়সী লোক এত ঘন ঘন জয়ী হয় কি করে) যা একটু বিরক্তিকর। সামগ্রিকভাবে, খুব একটা খারাপ বুকমেকার নয়।”

আদিব অর্নব

নেতিবাচক

“আপনি যদি আমাকে জিজ্ঞাসা করেন যে আমি অন্যদের কাছে ওয়ান এক্স বেট ব্যবহার করার পরামর্শ দিব কি না, আমি সঠিক উত্তর খুঁজে পাব না। কয়েক টি অসুবিধাজনক টাকা উইথড্রয়াল এবং দুর্বল গ্রাহক সহায়তা পরিষেবা ছাড়া এই সাইটের সাথে আমার কোনও রকম বড় সমস্যা ছিল না, তবে এই সাইটের তেমন কিছুই আমাকে ভাল ভাবে প্রভাবিত করে নি। এটি অতি সাধারণ অফার সহ একটি অতি সাধারণ অনলাইন বুকমেকার। “

সাদিয়া আফরিন

“আমি এক সপ্তাহ আগে ওয়ান এক্স বেট এ সাইন আপ করেছিলাম, আমার টাকা উইথ ড্র করার সমস্যার সমাধান করতে। আমি এখনও কোন উত্তর পাইনি এবং ইতিমধ্যেই বেশ বিরক্ত বোধ করছি। আমি লাইভ চ্যাটের মাধ্যমে তাদের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেছি কিন্তু এখন পর্যন্ত এব্যাপারে কোন ভাগ্য হয়নি। এটি আমার প্রথম উইথ ড্র এবং এটি সঠিকভাবে না হলে আমি খুব হতাশ হব।”

আসিফ হাসান